স্বাস্থ্য কথা

৩০ সেকেন্ডে করোনা ঠেকাবেন যেভাবে, জানাল কোরিয়ার গবেষণা

স্বাস্থ্যকথা ডেস্ক:

ক্লোহেক্সিডাইন মাউথওয়াশ দিয়ে কুলকুচি করলে করোনা সংক্রমণ ঠেকানো সম্ভব; এক গবেষণায় এমনটাই দাবি করেছে কোরিয়ান ইউনিভার্সিটি অব মেডিসিন।

তাদের পরামর্শ, মাত্র ১০ মিলিলিটার মাউথওয়াশ দিয়ে ৩০ সেকেন্ড কুলকুচি করুন। তাহলেই করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে অনেকটাই প্রস্তুত হতে পারবেন আপনি। এই মাউথওয়াশ দিয়ে মুখ ধুলে (কুলকুচি করলে) লালারসে করোনার জীবাণুর কর্মক্ষমতা অনেকটা কমবে। তবে এর জের বজায় থাকবে ২ ঘণ্টা।

ভারতীয় সংস্থা ICPA Health Products Ltd প্রায় ৩৫টি দেশে নিজেদের তৈরি পণ্য সরবরাহ করে, তারাই উৎপাদন করে ক্লোহেক্সিডাইন মাউথওয়াশ।

গবেষণায় জানানো হয়েছে যে, লালার মাধ্যমে জীবাণু ছড়ানো রোধ করে এই মাউথওয়াশ। একবার ব্যবহারের পর ২ থেকে ৪ ঘণ্টা কিছুটা নিশ্চিত থাকা যায়। তাই হাসপাতালে বা সামাজিক সংক্রমণ রুখতে এর জুড়ি মেলা ভার।

জানানো হয়েছে, SARS-CoV-2 জীবাণুর উপস্থিতি মারাত্মকভাবে পাওয়া গেছে লালায়। তাই অন্যের সঙ্গে কথা বলার ক্ষেত্রে এটা ছড়িয়ে পড়ে ব্যাপক হারে। তাই হাসপাতাল বা সামাজিকভাবে যাতে এই জীবাণু না ছড়ায় তার জন্য অনেক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। মাস্ক ছাড়া বাইরে বের হতে নিষেধ করা হয়েছে। তবে এই তরল পদার্থ দিয়ে মুখে কুলকুচি করলে করোনা ছড়ানোর ভয় সাময়িকভাবে অনেকটা কমবে বলে মত গবেষকদের।

গবেষণায় আরও জানানো হয়েছে, বিভিন্ন ক্ষেত্রের চিকিৎসকরা তাদের রোগীদের ক্লোহেক্সিডাইন (chlorhexidine) মাউথওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে আসার জন্য বলতে পারেন। চিকিৎসককে দেখাতে তাদের ক্লিনিকে গেলে অনেক ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব মেনে রোগী দেখা সম্ভব নয়। বিশেষ করে দাঁত, ত্বক বা চোখের চিকিৎসা করতে হলে রোগীর কাছাকাছি আসতেই হবে চিকিৎসককে। দাঁতের চিকিৎসার ক্ষেত্রে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি কম রাখতে, চিকিৎসকদের ১৫ থেকে ৩০ মিনিট অন্তর এই মাউথওয়াশ ব্যবহার করার কথা বলা হয়েছে।

এছাড়াও, রেড জোন থেকে বা কন্টেইনমেন্ট জোন থেকে এসে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিরা ক্লোহেক্সিডাইন মাউথওয়াশ প্রতি ২ ঘণ্টা অন্তর ব্যবহার করতেই পারেন৷ নিজের সুরক্ষার জন্য এই কাজটি করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ, বলছেন গবেষকরা।

করোনায় উপসর্গহীন রোগী যারা, তারা নির্দিষ্টভাবে ব্যবহার করতে পারেন এই মাউথওয়াশ। এর ফলে সংক্রমণের ওপর কিছুটা হলেও লাগাম টানা যাবে বলে মত গবেষকদের।

সূত্র: নিউজ১৮

চিত্রদেশ//এস//

আরও

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button