আয়োজনপ্রধান সংবাদ

বাণিজ্য মেলায় সন্ধ্যার পর বেড়েছে দর্শনার্থীর আনাগোনা

স্টাফ রিপোর্টার:
শুরু হয়েছে মাসব্যাপী ২৫তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। প্রথম দিনেই মেলায় ক্রেতা-দর্শনার্থীদের বেশ আনাগোনা লক্ষ্য করা গেছে। তবে এখনও প্রস্তুত হয়নি বেশিরভাগ স্টল-প্যাভিলিয়ন। চলছে নির্মাণ আর গোছানোর কাজ।

বুধবার সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে মেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর দুপুর থেকেই ক্রেতা-দর্শনার্থীদের জন্য মেলা খুলে দেয়া হয়।

মেলা ঘুরে দেখা গেছে, মেলায় প্রথম দিনই বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা নামলেই দর্শনার্থীদের আনাগোনা বাড়তে থাকে। যেসব স্টল-প্যাভিলিয়ন প্রস্তুত হয়েছে সেখানে দর্শনার্থীরা ঢুঁ মারছেন। বিভিন্ন পণ্য দেখছেন, দরদাম করছেন, আবার অনেকে কিনেও নিয়ে যাচ্ছেন।

এখনও বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের প্রস্তুত শেষ হয়নি। স্টলের নির্মাণকাজ চলছে। আবার অনেক স্টলে পণ্য গোছানোর কাজে ব্যস্ত থাকতে দেখা গেছে। তাই পুরোপুরি জমে উঠতে আরেও বেশ কয়েক দিন সময় লাগবে।

এদিকে উদ্বোধনের পরও মেলা প্রস্তুত না হওয়ায় ক্রেতা-দর্শনার্থীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। মেলায় আসা হাসিবুর রহমান জানান, আজকে মেলা উদ্বোধন হয়েছে, তাই বাচ্চাকে নিয়ে ঘুরতে এসেছি। ভালোই লাগছে, তবে আরও ভালো লাগতো যদি পরিপূর্ণ প্রস্তুত দেখতে পারতাম।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এটা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। এখানে অনেক বিদেশি ক্রেতা ও দর্শনার্থীও আসবে। তারা যদি এই রকম অব্যবস্থাপনা দেখেন তাহলে তো এটা আমাদের জন্য লজ্জার। তাই এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের নজর দেয়া উচিত। কারণ প্রতি বছরই আমরা দেখি মেলা শুরুর প্রথম ১০ দিন প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রস্তুত হতেই চলে যায়। এটা ঠিক নয় বলে মন্তব্য করেন এই দর্শনার্থী।

এদিকে মেলায় আশা আফরোজা নামের আরেক দর্শনার্থী জানান, মেলা শুরু হয়েছে শুনে প্রথম দিনই আসলাম। কিছু কেনাকাটাও করলাম। তবে মেলা এখনও প্রস্তুত হয়নি। যখন পুরোপুরি প্রস্তুত হবে মেলা জমে উঠবে তখন আবারও আসবো বলে জানান তিনি।

এদিকে যাদের প্রস্তুতি সম্পূর্ণ হয়েছে তাদের স্টল-প্যাভিলিয়নে ক্রেতা-দর্শনার্থীদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। দর্শনার্থীরা স্টলগুলোতে কেনাকাটা করছেন আবার অনেকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ঘুরে দেখছেন, নানা অফারের খোঁজ-খবর নিচ্ছেন।

 

মেলায় ১৪ নম্বর প্যাভিলিয়ন সাজিয়েছে দেশের শীর্ষস্থানীয় বহুজাতিক শিল্পপ্রতিষ্ঠান প্রাণ গ্রুপ। বিভিন্ন খাদ্যপণ্য নিয়ে প্যাভিলিয়ন সাজিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। প্রথম দিনই বেচাবিক্রি জমে উঠেছে বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির বিক্রয় উপব্যবস্থাপক হাবিবুল্লা মুন্না।

তিনি জানান, আজকে মেলা শুরু হয়েছে। মেলায় অংশগ্রহণ এর মূল উদ্দেশ্য আমাদের পণ্য ক্রেতা-দর্শনার্থীদের কাছে তুলে ধরা। পাশাপাশি পণ্য বিক্রি করা হচ্ছে। বেশকিছু অফার রয়েছে। বিকেল থেকে বেচাবিক্রি শুরু হয়। প্রথম দিনই ভালো সাড়া পাওয়া গেছে বলে জানান তিনি।

মেলায় বিভিন্ন থ্রি-পিস বিক্রি করছে ছোঁয়া কালেকশন। প্রতিষ্ঠানটির বিক্রয়কর্মী জানান, আজ মেলা শুরু হয়েছে। ক্রেতা-দর্শনার্থীরা আসছেন, দেখছেন। প্রথম দিন লোকজন কম। আগামী শুক্রবার থেকে মেলা জমে উঠবে বলে প্রত্যাশা করছেন তিনি।

মেলার আয়োজনকারীরা জানান, নতুন বছরের শুরুর দিন চালু হওয়া এ মেলা ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে। টিকিটের দাম বাড়িয়ে এ বছর প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ৪০ টাকা এবং অপ্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ২০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এবার মেলা মাঠের আয়তন সব মিলিয়ে প্রায় ৩২ একর।

এবারের মেলায় মোট স্টল-প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ৪৮৩টি। এর মধ্যে বিভিন্ন ক্যাটাগরির প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ১১২টি, মিনি প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ১২৮টি এবং বিভিন্ন ক্যাটাগরির স্টলের সংখ্যা ২৪৩টি। এর মধ্যে বিদেশি প্যাভিলিয়ন ২৭টি, বিদেশি মিনি প্যাভিলিয়ন ১১টি এবং বিদেশি প্রিমিয়ার স্টলের সংখ্যা ১৭টি।

মেলায় ২১টি দেশ অংশ নিয়েছে। এর মধ্যে বাংলাদেশ ছাড়াও থাইল্যান্ড, ইরান, তুরস্ক, নেপাল, চীন, মালয়েশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, পাকিস্তান, হংকং, দক্ষিণ কোরিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, জার্মানি, অস্ট্রেলিয়া, ভুটান, ব্রুনাই, দুবাই, ইতালি ও তাইওয়ান।

 

চিত্রদেশ//এস//

আরও

Leave a Reply

Back to top button