অর্থ-বাণিজ্যশিল্প

ফের বাড়লো সোনার দাম

স্টাফ রিপোর্টার:
আবারও বাড়ছে সোনার দাম। সোনা ব্যবসায়ীদের সংগঠন বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস) এবার ভরি প্রতি সোনার দাম বাড়িয়েছে ১ হাজার ১৬৬ টাকা। রোববার থেকে এই নতুন দাম কার্যকর হবে। শনিবার (২৩ নভেম্বর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাজুস এ কথা জানায়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দেশীয় মুদ্রার বিপরীতে ডলারের দাম বাড়ানো হয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় বাজারে সোনার দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর আগে গত জুলাই ও আগস্ট মাসে কয়েক দফায় সোনার দাম বাড়ানো হয়।

বাজুসের ঘোষণা অনুযায়ী সবচেয়ে ভালো মানের বা ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) সোনার দাম হবে ৫৮ হাজার ২৮ টাকা। এছাড়া ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি ৫৫ হাজার ৬৯৬ এবং ১৮ ক্যারেটের প্রতি ভরি ৫০ হাজার ৬৪০ টাকায় বিক্রি হবে।

আর সনাতন পদ্ধতিতে সোনার দাম ২৯ হাজার ১৬০ টাকা এবং ২১ ক্যারেটের প্রতি ভরি রুপা বিক্রি হবে আগের দামেই (৯৩৩ টাকা)।

বর্তমানে ২২ ক্যারেট মানের প্রতি ভরি সোনা বিক্রি হচ্ছে ৫৬ হাজার ৮৬২ টাকা, ২১ ক্যারেট মানের ৫৪ হাজার ৫২৯ টাকা এবং ১৮ ক্যারেট মানের প্রতি ভরি সোনা বিক্রি হচ্ছে ৪৯ হাজার ৫১৩ টাকায়। এই তিন মানের সোনার দামই ভরিপ্রতি ১ হাজার ১৬৬ টাকা বাড়ানো হলো।

দাম বাড়ানোর কারণ ব্যাখা করতে গিয়ে বাজুসের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দেশীয় মুদ্রার বিপরীতে ডলারের মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় স্থানীয় বুলিয়ন মার্কেটে স্বর্ণের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় এনে বাজুসের কার্যনির্বাহী কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক ২৪ নভেম্বর রোববার বাংলাদেশের বাজারে সোনার দর বাড়ানো হয়েছে।

বিশ্ববাজারে সোনার দর কমেছে। আন্ত:ব্যাংক লেনদেনে ডলারের দর খুব একটা বাড়েনি। তাহলে ডলারের দাম বাড়ার অজুহাতে কেনো সোনার দাম বাড়ানো হলো- এ প্রশ্নের উত্তরে বাজুসের সভাপতি দোলন বলেন, আন্ত:ব্যাংক লেনদেনে ডলারের দাম খুব একটা না বাড়লেও ব্যাংকগুলো বেশি দামে ডলার বিক্রি করছে। কার্ব মার্কেটে ডলার ৮৮ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ কথা ঠিক যে, আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি আউন্স গোল্ডের দাম ১০ ডলার কমেছে। কিন্তু ডলারের দর বাড়ার কারণে আমরা ভরিতে ১ হাজার ১৬৬ টাকা বাড়িয়েছি। আমরা যদি দাম না বাড়াতাম তাহলে আমাদের এখান থেকে গোল্ড ভারতে পাচার হয়ে যেত। সার্বিক বিষয় বিবেচনায় নিয়ে দাম বাড়ানো হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, গত বৃহস্পতিবার আন্ত:ব্যাংক লেনদনে প্রতি ডলার ৮৪ টাকা ৮০ পয়সায় বিক্রি হয়েছে। সোনালী ব্যাংক ডলার বিক্রি করেছে ৮৬ টাকা ৮০ পয়সা। আর মার্কেটে ডলার বিক্রি হয়েছে ৮৭ টাকা ১০ পয়সায়।

বিয়ের মৌসুমকে সামনে রেখে সোনার দর বাড়ানো হয়েছে কিনা- এ প্রশ্নের উত্তরে এনামুল হক দোলন বলেন, না, বিয়ের কারণে নয়। আর এখন তো বিয়ের মৌসুম শুরুই হয়নি। বুঝতে পারছি না। ডিসেম্বরের আগে হয়তো শুরু হবে না।

 

 

চিত্রদেশ //এলএইচ//

 

আরও

Leave a Reply

Back to top button