স্বাস্থ্য কথা

মলদ্বারে চুলকানির সমস্যায় যেসব খাবার খাবেন না

স্বাস্থ্য ডেস্ক:

মলদ্বারের চুলকানি একটি বিশেষ রোগ। মলদ্বারে স্নায়ুতন্ত্রের প্রাচুর্যের কারণে সম্ভবত এটি বিভিন্ন ধরনের উত্তেজকের প্রতি বেশি সংবেদনশীল। অল্প কিছু ব্যতিক্রম ছাড়া বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এর চিকিৎসা করা সম্ভব।

মলদ্বারে চুলকানি

যদিও এটি বিভিন্ন বিশেষ বিশেষ রোগে হতে পারে, তবু অনেক ক্ষেত্রেই মলদ্বারের কোনো রোগ পাওয়া যায় না। মলদ্বার ও মলাশয়ের সমন্বয়ের ভারসাম্যহীনতাই দায়ী বলে মনে করা হয়।
এ রোগে মলদ্বারের ত্বকে বিশেষ ধরনের পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। পাইলস, ফিসার, কোষ্ঠকাঠিন্য ও ডায়রিয়ায় মলদ্বারে চুলকানি হতে পারে। মলদ্বারের সমস্যা ছাড়াও অন্য রোগে মলদ্বারের চুলকানি হতে পারে। যেমন ডায়াবেটিস, অ্যালার্জি, ছত্রাক সংক্রমণ, কৃমি ইত্যাদি।
সোরিয়াসিস নামক ত্বকের রোগে এবং মলদ্বারের চর্ম স্নায়ুপ্রদাহ নামক বিশেষ ধরনের রোগে মারাত্মক রকমের চুলকানি হতে পারে। এ সাংঘাতিক চুলকানির কারণে মলদ্বারের চামড়া ছিঁড়ে যেতে পারে।

এই রোগে যেসব খাবার খাবেন না

যেসব খাবারের কারণে এ রোগ হতে পারে সেগুলো হচ্ছে- চা, কফি, মদ, বিয়ার, টমেটো, পনির ইত্যাদি। কোনো কোনো ক্ষেত্রে ধূমপান এ রোগের কারণ হতে পারে। মলদ্বারে চুলকানির সমস্যা থাকলে এসব খাবার না খাওয়াই ভালো।

চিকিৎসা
এ রোগে মলদ্বারের পরিচ্ছন্নতা রক্ষা করা জরুরি। সাবান, স্যাভলন ব্যবহার প্রয়োজন নেই। যাদের টয়লেট পেপারে এলার্জি আছে তারা সেটি বর্জন করবেন। মলদ্বারের ভেতর বিশেষ পদ্ধতিতে ওয়াশ দেয়ায় উপকার পাওয়া যায়। যাদের মলদ্বারে বেশি নিঃসরণ হয় তাদের যথাযথ ড্রেসিং পদ্ধতি শিখিয়ে দেয়া প্রয়োজন।

চিকিৎসা

বিভিন্ন ধরনের পথ্য, পেটেন্ট ওষুধ ও লোশন ব্যবহারে কমবেশি উপকার পাওয়া যায়। বিভিন্ন ধরনের ইনজেকশনও ব্যবহার করা হয়। কোনো কোনো সার্জন মলদ্বারের ত্বক কেটে ফেলে নতুন ত্বক লাগিয়েও সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করেছেন।

চিত্রদেশ //এল//

Tags

আরও

Leave a Reply

Back to top button