উন্নয়নে নারী

‘আইসিটি বিজনেস পারসন অব দ্য ইয়ার’ সোনিয়া বশির কবির

স্টাফ রিপোর্টার:
দেশের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) খাতে বিনিয়োগ, অগ্রণী ভূমিকা, উদ্ভাবনী উদ্যোগ ও অভাবনীয় সাফল্যের জন্য ‘দ্য ডেইলি স্টার আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস ২০১৯’ এর ‘আইসিটি বিজনেস পারসন অব দ্য ইয়ার’ পুরস্কার পান দেশের প্রযুক্তি ও উদ্ভাবন খাতের আইকন সোনিয়া বশির কবির।

এ নিয়ে প্রথমবারের মতো কোনো নারী এ পুরস্কার পেলেন। শুক্রবার রাজধানীর রেডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেনে পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী।

পুরস্কার অর্জন নিয়ে সোনিয়া বশির কবির বলেন, ‘আমার কাজের জন্য বিজনেস পারসন অব দ্য ইয়ার পুরস্কার জিততে পেরে আমি সম্মানিত ও কৃতজ্ঞতা বোধ করছি। এবারই প্রথমবারের মতো কোনো নারীকে এ পুরস্কার দেয়া হলো। আমি এ অর্জনকে প্রযুক্তিখাতে নারীদের নানা উদ্যোগ ও তাদের অবদান উদযাপনের সুযোগ হিসেবে মনে করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি আমার ক্যারিয়ারে বাংলাদেশের মেধাবী তরুণদের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়ে ধন্য মনে করছি। ভবিষ্যতেও আমি তাদের সঙ্গে কাজের ব্যাপারে আশাবাদী। আমার বিশ্বাস, বাংলাদেশের মানুষের জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তন আনার ক্ষেত্রে তরুণদের ক্ষমতায়নে প্রযুক্তি বিশেষ ভূমিকা রাখবে।’

সম্মানজনক এ পুরস্কার দিয়ে তাকে সম্মানিত করার জন্য ডেইলি স্টারকে ধন্যবাদ জানান সোনিয়া বশির কবির।

উদীয়মান বাজারে প্রযুক্তি স্টার্টআপে বাংলাদেশি বিনিয়োগকারী সোনিয়া বশির কবির। বাংলাদেশের প্রযুক্তিখাতে সোনিয়া বশির কবির প্রতিষ্ঠাতা, সহ-প্রতিষ্ঠাতা, অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টর ও টেক ফিলানথ্রোপিস্ট হিসেবে সুপরিচিত। তিনি এসবিকে টেক ভেঞ্চারস এবং এসবিকে ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান। এর আগে তিনি পাঁচ বছর মাইক্রোসফট বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান, মিয়ানমার ও লাওসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন।

২০১৭ সালে জাতিসংঘ সোনিয়া বশির কবিরকে ‘ওয়ান অব দ্য টেন সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোলস (এসডিজি) পাইওনিয়ার’ হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। ২০১৬ সালে বিল গেটস সোনিয়া বশির কবিরকে ‘ওয়ান অব দ্য ১০ রিসিপেন্ট অব মাইক্রোসফট’স প্রেস্টিজিয়াজ ফাউন্ডারস অ্যাওয়ার্ডে’ ভূষিত করেন। এছাড়া তিনি আবাহনী ও বাংলাদেশ নারী জাতীয় দলের জন্য ভলিবল ও ক্রিকেট খেলেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে এমবিএ শেষ করার পর সোনিয়া বশির কবির সান মাইক্রোসিস্টেমস ও ওরাকলসহ ফরচুন ১০০- এর অন্যান্য স্টার্টআপে কাজ করেছেন। তিনি স্ট্র্যাটেজিক প্ল্যানিং ও গ্রোথ, সেলস এক্সিকিউশন, ফাইন্যান্সিয়াল ম্যানেজমেন্ট, টিম বিল্ডিং এবং চেঞ্জ ম্যানেজমেন্ট নিয়ে বিশেষভাবে অভিজ্ঞ। ২০ বছর যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসের পর নিজের দেশে প্রযুক্তি গণতন্ত্রায়ণ ও সহজলভ্য করার উদ্দেশে বাংলাদেশে ফিরে আসেন সোনিয়া বশির কবির। বাংলাদেশে তিনি ডেল বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার ও মাইক্রোসফটে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার উদীয়মান বাজারে বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ডিরেক্টর এবং আমরা টেকনোলজিসের চিফ অপারেটিং অফিসার হিসেবে কাজ করেছেন।

সোনিয়া বশির কবির ১০টির বেশি স্টার্টআপের সহ-প্রতিষ্ঠাতা। যার মধ্যে রয়েছে ডিমানি, সিনটেক, ডিজিল্যান্ড, ইউকিল, অ্যাগ্রিসেন্সর, টার্বো টেকনোলজিস, ইউনাইটেড ভেঞ্চারস, দক্ষ, প্রশান্তি ও পালস। সেবা এক্সওয়াইজেড.কম, প্রিয়শপ.কম ও রেপ্টোসহ বেশ কয়েকটি স্টার্টআপে তিনি অ্যাঞ্জেল ইনভেস্টর হিসেবেও আছেন।

এছাড়া সোনিয়া বশির কবির ভারতের নয়াদিল্লির মহাত্মা গান্ধী ইনস্টিটিউট অব এডুকেশন ফর পিস অ্যান্ড সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্টের (এমজিআইইপি) গভর্নিং বোর্ডের সদস্য। তিনি টিআইই ঢাকা চ্যাপ্টারের প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট এবং বর্তমানে তিনি এ অ্যাসোসিয়েশনের উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করছেন। সিলিকন ভ্যালিভিত্তিক টিআইই অ্যাসোসিয়েশন নানা ধরনের উদ্যোগ নিয়ে কাজ করে। নারীদের জন্য বাংলাদেশের প্রথম আইটি অ্যাসোসিয়েশন ‘বাংলাদেশ উইমেন ইন আইটি’র (বিডব্লিউআইটি) সহ-প্রতিষ্ঠাতাও তিনি। এর বাইরে তিনি দেশের প্রযুক্তিখাতে নারীদের প্রথম বিনিয়োগ প্ল্যাটফর্ম ‘দ্য অ্যাঞ্জেলস নেটওয়ার্ক’র (টিএএন) প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট।

 

চিত্রদেশ //এস//

আরও

Leave a Reply

Back to top button